Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১ জুন, ২০১৮ ১৫:২৫ অনলাইন ভার্সন
পাঠক পত্র
সবুজ সড়কদ্বীপগুলো যেন হারিয়ে না যায়

সবুজ সড়কদ্বীপগুলো যেন হারিয়ে না যায়

সবুজ সড়কদ্বীপগুলো যেন হারিয়ে না যায়রাজধানী ঢাকায় হাতেগোনা কয়েকটি সবুজ সড়কদ্বীপ আছে। এর মধ্যে অন্যতম দুটি সবুজ সড়কদ্বীপ হলো পুরান ঢাকার ‘নগরে নিসর্গ’ ও সায়েন্স ল্যাবরেটরির ‘অর্ঘ’। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) থেকে ইজারা নিয়ে সড়কদ্বীপ দুটিতে নান্দনিক সবুজায়ন করেছিল ‘হেরিটেজ ক্রিয়েটিভ কাউন্সিল’ নামের একটি বেসরকারি সংগঠন। দুঃখের বিষয়, সম্প্রতি পুরান ঢাকার তাঁতীবাজারের ‘নগরে নিসর্গ’ নামের সড়কদ্বীপটি ভেঙে সেখানে সিটি করপোরেশন থেকে বড় আকারের ডিজিটাল বিলবোর্ড বসানো হয়েছে। এ ছাড়া সায়েন্স ল্যাবরেটরির ‘অর্ঘ’ নামের সড়কদ্বীপটিও সিটি করপোরেশন থেকে ভেঙে ফেলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পথচারী তথা নগরবাসীর সঙ্গে সৌন্দর্য ও সবুজের সেতুবন্ধন তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল এই সড়কদ্বীপের মাধ্যমে। ‘নগরে নিসর্গ’ নামের যে সড়কদ্বীপটি ভেঙে ফেলা হয়েছে সেখানে কংক্রিটের টবে ছিল নানা জাতের ফুলগাছ, চত্বর ঘিরে ছিল সবুজ ঘাস, পাহাড়ের আদলে তৈরি স্থাপনাসহ সিঁড়ি বেয়ে পানি নিচে নেমে আসার পথ।

পুরান ঢাকার ব্যস্ততম এই সড়কে ‘নগরে নিসর্গ’ সড়কদ্বীপ পথচারীদের প্রশান্তির পরশ বুলিয়ে দিত। কিন্তু সেসব এখন অতীত। সায়েন্স ল্যাবরেটরির সড়কদ্বীপ ‘অর্ঘ’তে রয়েছে ছোট্ট কৃত্রিম লেক ও জলাধার, নানা ধরনের জলজ উদ্ভিদ, মাছ, ফুল, পাখি ও কৃত্রিম পাহাড়সারিসহ আরও অনেক কিছু। ‘নগরে নিসর্গ’ ভেঙে ফেলার পর ‘অর্ঘ’ও ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্তে পরিবেশবাদীরা প্রতিবাদ জানিয়েছে।  ইট-কাঠ-পাথরের এই শহরে পথচারীদের বড় স্বস্তির জায়গা এই সড়কদ্বীপগুলো। সড়কদ্বীপ ভেঙে ফেলায় নগরের পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিসহ সৌন্দর্যও বিনষ্ট হবে। যান্ত্রিক এই শহরে ধোঁয়া শোষণ করে মানুষের বিশুদ্ধ নিঃশ্বাসে সহায়তা করে থাকে পার্ক ও সড়কদ্বীপগুলো।

নগর পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে ও সৌন্দর্য বাড়াতে সড়কদ্বীপগুলো রক্ষা করে নতুন নতুন সড়কদ্বীপ তৈরিসহ সড়ক বিভাজক ও আইল্যান্ডে ক্ষুদ্র পরিসরে বনায়ন তৈরির উদ্যোগ নেওয়া দরকার। এতে করে ক্ষুদ্র পরিসরে হলেও পাখি, কীটপতঙ্গ, পোকামাকড়, অন্যান্য উদ্ভিদ ও প্রাণীসহ সার্বিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ হবে।
সাধন সরকার

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা-১১০০

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow