Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১২ জুন, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ জুন, ২০১৮ ০১:৫২
জিটিসিএলের মূল্য ১০ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব
নিজস্ব প্রতিবেদক

গ্যাসের সারচার্জ বাড়িয়ে ৩৭ পয়সা করার সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) মূল্যায়ন কমিটি। অবশ্য গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেড (জিটিসিএল) এই চার্জ প্রতি ঘনমিটারে ০.২৬৫৪ টাকা থেকে .৪৪৭৬ টাকার অর্থাৎ ৬৮.৬৫ ভাগ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে। কিন্তু বিইআরসির কারিগরি কমিটি ১০ পয়সা বাড়িয়ে তা ৩৭ পয়সা করার সুপারিশ করেছে। গতকাল সকালে রাজধানীর কারওয়ানবাজার টিসিবি মিলনায়তনে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। বিইআরসির চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম শুনানিটি পরিচালনা করেন। এ সময় সেখানে আরও উপস্থিত ছিলেন কমিশনের সদস্য আবদুল আজিজ খান, মিজানুর রহমান মুর্শেদ ও মাহমুদ উল হক ভূঁইয়া। আজ তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির শিল্প, সিএনজি ও বিদ্যুৎ গ্রাহকদের জন্য গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর শুনানি হবে। গ্যাস কোম্পানিগুলোর ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন চার্জ এবং ভোক্তা পর্যায়ে প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্য নির্ধারণের আবেদনপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং কমিশনের  ট্যারিফ নির্ধারণ পদ্ধতি অনুযায়ী এই দাম ঠিক করা হবে।

এজন্য কমিশনের পরিচালক (গ্যাস)-কে আহ্বায়ক করে কমিশন সাত সদস্যের কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি গঠন করে। জিটিসিএলের গ্যাসের দাম বাড়ানোর আবেদনে উল্লেখ করা হয় যে, দেশে আমদানি করা তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্য প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের সঙ্গে মিশ্রণ করা হলে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের মূল্য বেড়ে দাঁড়াবে ১২.১৫ টাকা। উক্ত বিক্রয় মূল্যহার নির্ধারণের ক্ষেত্রে ট্রান্সমিশন চার্জ ০.৪২২৫ টাকা বিবেচনা করেছে জিটিসিএল। এজন্য তাদের প্রস্তাবে সঞ্চাল চার্জপ্রতি ঘনমিটার বিদ্যমান ০.২৬৫৪ টাকা থেকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে .০৪৪৭৬ টাকা বাড়ানোর জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে ট্রান্সমিশন চার্জ বাড়ার হার ৬৮.৬৫ ভাগ হবে। জিটিসিএল কর্তৃপক্ষ জানান, ট্রান্সমিশন চার্জ মোতাবেক ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জিটিসিএলের প্রাক্কলিত রাজস্ব ঘাটতি ০.১০২৭ টাকা /ঘনমিটার।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়েজউল্লাহ জানান, আর মাত্র সপ্তাহখানেকের মধ্যে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে এলএনজি।

গণশুনানিতে অন্যদের মধ্যে আরও ছিলেন কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক আলম, জিটিসিএল ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন কোম্পানির কর্মকর্তারা। আজ তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির শিল্প, সিএনজি ও বিদ্যুৎ গ্রাহকদের জন্য গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের ওপর শুনানি হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow