Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৮ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৭ মে, ২০১৮ ২৩:২৫
পল্লী চিকিৎসকের অপারেশন টেবিলে তরুণের মৃত্যু!
মেহেরপুর প্রতিনিধি

মেহেরপুরে পল্লী চিকিৎসকের অপারেশন টেবিলেই সাইদুর রহমান (১৮) নামে এক তরুণের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সদর উপজেলার আলমপুর গ্রামে গতকাল এ ঘটনা ঘটে। সাইদুর গাংনী উপজেলার গাঁড়াডোব গ্রামের সানোয়ার হোসেনের ছেলে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত চিকিৎসক ও তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক। সানোয়ার হোসেন জানান, তাঁর ছেলে দীর্ঘদিন ধরে নাকের পলিপাস রোগে ভুগছিল। পাশের আলমপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক ফকরুজ্জামান ছেলের পলিপাস অপারেশন করবেন বলে সাড়ে তিন হাজার টাকা চুক্তি করেন।

 চুক্তির পুরো টাকা বৃহস্পতিবার সকালে পরিশোধের পর আমাদের বাইরে বসতে বলে সাইদুরকে অপারেশনের জন্য একটি রুমে ঢুকান। অনেকক্ষণ বের না হলে ডাকাডাকি শুরু করি। একপর্যায়ে ছেলে চিৎকার দিয়ে উঠে। তারপরই ফকরুজ্জামান আমাদের বলে ছেলের রক্ত কম আছে হাসপাতালে নিতে হবে। মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তার জানায় সে বেঁচে নেই। ফকরুজ্জামান বলেন, ‘আমি অপারেশন করিনি। গাংনী থেকে রিপন নামে এক ডাক্তার অপারেশনটি করেছেন।’ ওই কিচিৎসক এমবিবিএস কীনা এমন প্রশ্নে জবাব না দিয়ে ফকরুজ্জামান কৌশলে সটকে পড়েন। পুলিশ হাসপাতাল ও ফকরুজ্জামানের চেম্বার কাম বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাননি। সাইদুরের মা বার বার চিৎকার করে বলেন, ‘আমার সোনার টুকরা ছেলেকে ওই ডাক্তার মেরে ফেলল। আমি ডাক্তারের বিচার চাই।’ সাইদুরের মৃত্যুতে গাড়াডোব গ্রামবাসী ফকরুজ্জামানের চিকিৎসা কার্যক্রম বন্ধের দাবি জানান।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow