Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৩ জুন, ২০১৮ ২৩:১৯
দুই যুগ ধরে বিনামূল্যে মেসওয়াক বিতরণ
নাটোর প্রতিনিধি

পেশায় ওয়াচম্যান (প্রহরী)। দৈনিক মজুরিতে চাকরি করেন। নিজের সংসার চালাতেই হিমশিম খান। অথচ রমজান এলই পুরো মাস ছুটি নিয়ে নেমে পড়েন মানব সেবায়। রোজদারদের খেদমতে দুই যুগ ধরে তিনি বিনামূল্যে মেসওয়াক বিতরণ করছেন। যার কথা হচ্ছিল তিনি মাহাতাব উদ্দিন (৫৪)। বাড়ি নাটোরের বাগাতিপাড়ায়। নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলে চাকরি করেন। বাগাতিপাড়ার মালঞ্চি বাজারে মেসওয়াক বিতরণের সময় দেখা হয় মাহতাবের সঙ্গে। জানান, ছোটবেলা থেকে রমজান মাসে বাড়ির পাশের বাজারে গিয়ে বসে থাকতেন। বিকাল হলেই সবাই তাকে মেসওয়াক নিয়ে আসতে হুকুম করতেন। এর পর ভাবেন, হুকুম করার আগেই যদি তার মেসওয়াকটা এনে দেওয়া যেত, তাহলে লোকটি বোধ হয় আরও খুশি হবেন। সেই ভাবনা থেকেই শুরু।

এরপর দুই যুগ ধরে রমজান মাসে মেসওয়াকের ব্যাগ নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন নাটোর, রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের হাটে-বাজারে, মসজিদের সামনে। আর বিতরণ করছেন বিনামূল্যে মেসওয়াক। তিনি বলেন, সেহরি খাওয়ার পর থেকে সারা সকাল মেসওয়াক বানিয়ে দুপুরের পর বেরিয়ে পড়েন বিতরণ করতে। এ কাজে স্ত্রী-সন্তানরা তাকে সহযোগিতা করেন। মূলত তিনি নিম গাছের ডাল দিয়ে মেসওয়াক বানান। জানালেন, সারা বছর কর্মক্ষেত্র থেকে ছুটি না কাটিয়ে জমা রাখেন। রমজান এলেই পুরো মাসের ছুটি নিয়ে নেমে পড়েন এ কাজে। শুরুর দিকে কর্তৃপক্ষ ছুটি দিতে চাইতো না। এখন আর ছুটি নিতে সমস্যা হয় না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow