Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ১৬:৩৩ অনলাইন ভার্সন
ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পরিবারের
লক্ষ্মীপুরে ১১ দিনেও সন্ধান মেলেনি দুই ব্যবসায়ীর
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরে ১১ দিনেও সন্ধান মেলেনি দুই ব্যবসায়ীর

গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ পরিচয়ে দুই কাঁচামাল ব্যবসায়ীকে বাস থেকে নামিয়ে নেওয়ার ১১ দিনেও তাদের সন্ধান পায়নি পরিবার। নিখোঁজ মো. মাসুদ ও সাইফুল ইসলাম চট্টগ্রাম শহরের অক্সিজেন এলাকায় ব্যবসা করতেন। তাদের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের সদর উপজেলায়। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের ফেনী সড়কের বড়পোল এলাকায় ৫ এপ্রিল রাতে তাদের বাস থেকে নামিয়ে নেওয়া হয়।

এ ঘটনায় সোমবার  দুপুরে লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন নিখোঁজ ব্যক্তিদের পরিবার। সুস্থবস্থায় তাদের ফিরে পেতে প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা। মাসুদ লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জের পূর্ব রাজাপুর গ্রামের মৃত ইব্রাহীম মিয়ার ছেলে এবং সাইফুল হামছাদীর আলীপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, চট্টগ্রাম শহরের অক্সিজেন এলাকায় মাসুদ ও সাইফুল দীর্ঘদিন ধরে কাঁচামালের ব্যবসা করে আসছেন। গত ৫ এপ্রিল বিকালে চট্টগ্রাম থেকে তারা বাড়ির উদ্দেশ্যে জোনাকী পরিবহনে রওনা হন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের ফেনী সড়কের বড়পোলে পৌঁছালে সাদা পোশাকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৫-৬ ব্যক্তি বাসের গতিরোধ করে।

এসময় তাদের দুইজনকে বাস থেকে নামিয়ে নেওয়া হয়। ঘটনাটি পরিবারের লোকজন জানতে পারেন একই বাসে থাকা সুপারি ব্যবসায়ী আবদুল মোতালের মাধ্যমে। মোতালেব চট্রগ্রামের অক্সিজেন এলাকার ব্যবসায়ী এবং একসঙ্গে তারা বাড়িতে আসার জন্য রওনা হন।

পরে তাদের সন্ধান চেয়ে পরিবারের সদস্যরা নোয়াখালী, কুমিল্লা ও লক্ষ্মীপুরের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে ধরনা দেন। বিষয়টি র‌্যাব-১১ এর লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পে লিখিতভাবে জানানো হয়। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না বলে ভুক্তভোগীদের পরিবারের অভিযোগ।

নিখোঁজ মাসুদের স্ত্রী আয়েশা ও সাইফুল বাবা ইসমাইল হোসেন সাংবাদিকদের জানান, তারা সুস্থ অবস্থায় দ্রুত দুইজনকে ফিরে পেতে চান। এ ঘটনায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ ও লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) করতে গেলে পুলিশ তা গ্রহণ করেনি। এ নিয়ে উভয় পরিবারের সদস্যরা চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/১৬ এপ্রিল, ২০১৮/ফারজানা
  

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow