Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৬ মে, ২০১৮ ১৫:৩৫ অনলাইন ভার্সন
লাশ ফেলে পালিয়ে গেল শ্বশুরবাড়ির লোকজন
শরীয়তপুর প্রতিনিধি
লাশ ফেলে পালিয়ে গেল শ্বশুরবাড়ির লোকজন

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারীয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাষানচর গ্রামে খাদিজা বেগম (২০) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই গৃহবধূর লাশ ঘরে ফেলে তার স্বামী এবাদুল মৃধা ও শশুরবাড়ির মানুষজন পালিয়ে গেছে। পুলিশ খবর পেয়ে বুধবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তর জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানা সূত্র জানায়, সদর উপজেলার আংগারীয়া ইউনিয়নের ভাষানচর গ্রামের গোলাম মাওলা কাজীর মেয়ে খাদিজা বেগম। ২০১৬ সালের নভেম্বরে একই ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাষানচর গ্রামের ছমেদ মৃধার ছেলে এবাদুল মৃধার সাথে খাদিজার বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের টাকার জন্য খাদিজাকে নির্যাতন করত স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে কয়েক মাস আগে খাদিজা বাবার বাড়ি ফিরে আসে। পরবর্তিতে আত্মীয় স্বজনের সহায়তায় কয়েক দফা সালিশ হয়েছে। পুনরায় খাদিজা শ্বশুরবাড়ি ফিরে যান। মঙ্গলবার রাতে খাদিজাকে মারধর করা হয়। তাকে ঘরে আটকে রেখে পালিয়ে যায় স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। বুধবার ভোরে ওই ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ খাদিজার বাবার বাড়িতে খবর দেয়। তার পরিবারের সদস্যরা এসে দেখে বসত ঘরের খাটের উপর কাপড় প্যাচানো অবস্থায় খাদিজার মরদেহ পড়ে আছে। পুলিশে খবর দিলে পালং থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।
খাদিজার ভাই শাহীন কাজী বলেন, আমরা গরিব মানুষ, দিন আনি দিন খাই। বোনের শ্বশুরবাড়ির চাহিদা অনুযায়ী টাকা দিতে পারিনি। টাকার জন্য তাকে নিয়মিত নির্যাতন করা হত। পাষণ্ডরা যে আমার বোনকে হত্যা করবে তা ভাবতে পারিনি। তাহলে ওকে আর শশুরবাড়ি পাঠাতাম না।
খাদিজার লাশ বসত ঘরে ফেলে রেখে রাতেই ঘরের জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায় স্বামী এবাদুল মৃধা, শ্বশুর গোলাম মাওলা ও শাশুড়ি রিজিয়া বেগম। সকালে যখন জানাজানি হয় খাদিজা মারা গেছে তখন তার শ্বশুরবাড়ির অন্য সদস্যরাও পালিয়ে যায়।
পালং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, মেয়েটির শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে মারধরের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow