Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৫ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৪৭
বিশ্বায়নে পাওয়া সত্য-সুন্দরকে আত্মগত করতে হবে
সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক
বিশ্বায়নে পাওয়া সত্য-সুন্দরকে আত্মগত করতে হবে
সন্‌জীদা খাতুন

বাংলাদেশের আকাশ-বাতাস, পাহাড়-সমতল-প্রান্তর, নদী-সমুদ্র-হাওর, বৃক্ষ-লতা, ফুল-ফল, পাখ-পাখালি আমাদের পরম প্রিয়। প্রিয় এদেশের সব মানুষ। পরস্পর সংঘবদ্ধ থেকে আমরা বিশ্বকেও যুক্ত করে নেব আমাদের সঙ্গে। শিকড়ের মাটিতে দৃঢ়বদ্ধ থেকে বিশ্বায়নের ফলে পাওয়া সত্য-সুন্দরকে আত্মগত করে ঋদ্ধ হব আমরা। বিশ্বায়ন আজ আমাদের কাছে বাস্তব সত্য। রমনার বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণের প্রভাতী অনুষ্ঠানে এ দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন সংগঠনটির সভাপতি সনজীদা খাতুন।

মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত হতে দেশবাসীর প্রতি শপথ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে সংস্কৃতির এই সাধক বলেন, যে মাটি আমাদের পায়ের তলার আশ্রয়, জন্মের শুভক্ষণে সেই মাটিতেই ভূমিষ্ঠ হয়েছি আমরা। জন্মসূত্রেই এ মাটি আমাদের একান্ত আপন। সেই মাটির বুকে শিকড়ের মতো পা ডুবিয়ে মাটি-মাতাকে জানব আমরা। এমন স্বভাবসম্মত প্রক্রিয়ায় দেশীয় মূল্যবোধে বেড়ে উঠে আত্মপরিচয়ে প্রত্যয়ী আর প্রতিষ্ঠিত হব আমরা, বাংলাভূমির সর্বজন। আবার মাটির রসে পুষ্ট হয়ে আকাশের দিকেও হাত বাড়াব আমরা। আলো আর বাতাসের তেজ আর স্নিগ্ধতা সর্ব অঙ্গে মেখে আমাদের সত্তা সঞ্জীবিত হয়ে উজ্জ্বলতর হবে। মাটি আর আলো-বাতাসের রসসম্পদ মিলে আমাদের করে তুলবে পূর্ণাঙ্গ মানুষ। এভাবে শাশ্বত মানব হওয়ার পথের অভিযাত্রা সফল হবে।

সনজীদা খাতুন আরও বলেন, বিশ্বের সংগীতে-সাহিত্যে-শিল্পকলায়-দর্শনে-বিজ্ঞানে যে মহান অর্জন তার আস্বাদ নেব আমরা। আত্মস্থ করতে হবে সব মানবিক অন্তরসম্পদ। সেই সত্য-সুন্দর সমৃদ্ধ করবে আমাদের। দেশীয় মানসের সঙ্গে বিশ্বের মানসের সহজ যোগেই আসবে মানবকল্যাণ। ১৪২৫-এর পয়লা বৈশাখের স্নিগ্ধ প্রভাতে দেশবাসীর জন্য আজ ছায়ানটের এই শুভকামনা। আজ সার্বিক কল্যাণের বোধে পূর্ণ প্রীতিতে সর্বমানবের অভিমুখে আমাদের যাত্রা অব্যাহত থাকবে এই শপথ করি। শুভ নববর্ষ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow