Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৩৯
ফ্যাশন
সৌন্দর্য চুলে
মোহাম্মদ সুজন
সৌন্দর্য চুলে
♦ মডেল : দোয়েল ♦ পোশাক : রঙ বাংলাদেশ

রেশমি চুল কে না চান। সুন্দর এক গোছা চুল রমণীদের প্রচেষ্টারও কমতি থাকে না। চুলের পরিচর্যায় কত না আয়োজন। হাল আমলে রীতিমতো পরীক্ষা-নিরীক্ষাও চলছে কম না। চুলের সৌন্দর্যে নিজেকে সাজাতে প্রাকৃতিক ও কৃত্রিম উভয় পদ্ধতিই আজ তারা অবলম্বন করছেন। পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। হেয়ার ব্যান্ড থেকে শুরু করে চুলের নিবিড় চর্চা রয়েছে তার মধ্যে। বলে রাখা ভালো, আজকাল চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে বয়স আর বাধা নয়। তাইতো সব বয়সের নারী আজ চুল সুন্দর করতে ব্যতিব্যস্ত। তাই প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক ঝলমলে সুন্দর চুল পেতে সঠিক পরিচর্যা সম্পর্কে।

 

—সপ্তাহে তিন দিন চুলে শ্যাম্পু করবেন, তা না হলে ত্বকে ময়লা জমে খুশকি হতে পারে।

— চুল এবং মাথার ত্বকের উপযোগী একটি শ্যাম্পু নির্দিষ্ট করুন। পাশাপাশি চুলকে নরম, মসৃণ ও ময়েশ্চারাইজ করতে ভালো ব্র্যান্ডের কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। কন্ডিশনার চুলকে ভেঙে যাওয়া, রুক্ষ হয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে।

— প্রতিদিন কমপক্ষে ৫ মিনিটের জন্য হলেও মাথার ত্বক ম্যাসাজ করুন। এর ফলে মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে, ত্বকের মৃত কোষ ও খুশকি দূর করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।

— চুলের মলিনতা ও রুক্ষতা দূর করতে সপ্তাহে অন্তত একদিন চুলে কুসুম গরম তেল ম্যাসাজ করুন। এটি চুল ঝরে যাওয়া প্রতিরোধ করে। নারিকেল, জলপাই অথবা বাদাম তেল হালকা গরম করে আঙুলের সাহায্যে পুরো মাথায় আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন। এক ঘণ্টা রেখে ভালো করে শ্যাম্পু করে ফেলুন।

— চুলের ধরন তৈলাক্ত হলে, শ্যাম্পু করার পর এক মগ পানিতে খানিকটা লেবুর রস অথবা খানিকটা ভিনেগার দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করুন। দেখবেন চিটচিটে ভাব দূর হয়ে গেছে।

 

সুন্দর চুল পেতে নিতে পারেন আরও কিছু নিবিড় যত্নআত্তি। সেজন্য বাটা মেহেদি পাতার সঙ্গে ২/৩ টেবিল চামচ চায়ের লিকার দিয়ে সারারাত রাখুন। পরের দিন ১টি ডিম, ৩ চা চামচ টকদই, ২ টেবিল চামচ লেবুর রস এবং ১ টেবিল চামচ নারিকেল তেল দিয়ে মিশিয়ে চুলে লাগান। ২ ঘণ্টা পর হালকা কোনো শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ১ বার ব্যবহারে চুলের রুক্ষতা দূর হবে একেবারে। এ ছাড়াও দুটি পাকা কলা বাটিতে নিয়ে চামচের সাহায্যে চটকে নিন। তাতে ২ টেবিল চামচ মেয়োনেজ এবং ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে চুলে ১ ঘণ্টা লাগিয়ে রাখুন। তারপর ভালো করে ধুয়ে নিন। এই প্যাকে চুল নরম এবং উজ্জ্বল করে তুলবে।

 

কলার অপর একটি প্যাকও চুলের জন্য দারুণ কার্যকর। সেজন্য ২টি কলা নিয়ে পিষে নিন ভালো করে। এরপর এতে ১টি ডিমের কুসুম এবং ১ চা চামচ তাজা লেবুর রস দিয়ে ভালো করে মেশান। এ মিশ্রণটি পুরো চুলে লাগিয়ে রাখুন ৩০-৪০ মিনিট। এরপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ১ দিন ব্যবহারে চুলের রুক্ষতা দূর হবে দ্রুত। এ প্যাকটি চুলের ঘনত্ব বৃদ্ধি" করবে এবং চুল পড়াও বন্ধ করবে।

 

এবার আসা যাক চুল সাজানোর বিষয়ে। বাহারি হেরায়পিন ও ক্লিপ— চুলকে নতুন লুক এনে দিতে পারে। তবে এগুলো অবশ্যই চুলের সঙ্গে মানানসই হওয়া চাই। ঝকঝকে লুকের জন্য চুলের স্টাইলটাও জরুরি। পোশাকের সঙ্গে মানানসই হওয়া চাই কেশসজ্জা। এজন্য সাহায্য নিতে পারেন কোনো রূপ বিশেষজ্ঞের। আপনিও নিজেও কাজটি করতে পারেন। ইন্টারনেটের যুগে পছন্দের হেয়ার স্টাইল খুঁজে বের করা কঠিন নয়। অনুসরণ করতে পারেন স্টাইলগুলো। তখন হেয়ারকাট থেকে শুরু করে সবই হবে মনের মতো।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow