Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৭ মে, ২০১৮ ২১:৫৪ অনলাইন ভার্সন
পশ্চিমবঙ্গে ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে বড় জয়ের পথে তৃণমূল
দীপক দেবানথ, কলকাতা
পশ্চিমবঙ্গে ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে বড় জয়ের পথে তৃণমূল

পশ্চিমবঙ্গে ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রত্যাশা মতোই বড় জয়ের পথে রাজ্যটির ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যদিকে বাম-কংগ্রেসকে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসছে বিজেপি।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত গণনার শেষ খবর পাওয়া অনুযায়ী রাজ্যটির ৩৩৫৮ গ্রাম পঞ্চায়েতের ৩১৮২৭ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল জিতেছে ২১,১৪৮ আসনে, বিজেপি ১৩৯৩ আসনে জয় পেয়েছে, বামেরা ৩১৪ এবং কংগ্রেস ২১৯ আসনে জয়ী হয়েছে, অন্যরা পেয়েছে ২৭৭ টি আসন।
৩৪১ টি পঞ্চায়েত সমিতির ৬১৫৭ আসনের মধ্যে তৃণমূলের দখলে গেছে ২৫৪৩ টি আসন, বিজেপি পেয়েছে ১৬২ টি, বামেরা ৭৯ টি, কংগ্রেস ৬৭ টি এবং অন্যরা ১ টি আসনে জয়ী হয়েছে।
অন্যদিকে রাজ্যটির ২০ টি জেলা পরিষদের ৬২১ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল ইতিমধ্যেই ৩৫১ টি আসনে জয়ী হয়েছে। ৯ টি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি, বামেরা ২ টি, কংগ্রেস ৪ টি আসনে জয় পেয়েছে। যদিও তিনটি পর্যায়েই একাধিক আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু আদালতের নির্দেশে এখনই সেই ফল প্রকাশ্যে আনার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।
যদিও ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনের সম্পূর্ণ ফলাফল আসতে বৃহস্পতিবার রাত গড়িয়ে যেতে পারে বলে খবর। এদিন সকাল ৮ টা থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে শুরু হয় ভোট গণনা। রাজ্য জুড়ে মোট ২৯১ টি কেন্দ্রে শুরু হয় ভোট গণনা। ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রথম পর্যায়ে শুরু হয় গ্রাম পঞ্চায়েত-এর ভোট গণনা, তা শেষের পর পঞ্চায়েত সমিতি এবং সবশেষে জেলা পরিষদের গণনা শুরু হয়।
গত সোমবার এই আসনগুলিতে নির্বাচন হয়। কিন্তু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় ২৩ জনের প্রাণহাণি ঘটে। পাশাপাশি একাধিক জায়গায় ছাপ্পা ভোট, বুথ দখল, ব্যালট পেপার ছিনতাই, ব্যালট বাক্সে পানি ঢেলে দেওয়া, ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়া সহ একাধিক অভিযোগ ওঠে। সেই কারণেই গতকার বুধবার প্রায় সাড়ে পাঁচশতাধিকের বেশি আসনে পুন:নির্বাচন হয়। বৃহস্পতিবার ছিল তার গণনা। তবে ভোট গণনাকে কেন্দ্র করেও রাজ্যের একাধিক জায়গা থেকে বিক্ষিপ্ত সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।
এদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের এই সাফল্যে সন্তোষ প্রকাশ করে এই জয় মা-মাটি-মানুষের প্রতি উৎসর্গ করেছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা ব্যানার্জি। বৃহস্পতিবার রাতে নবান্নে মমতা বলেন ‘বিরোধী দলগুলি একত্রিত হওয়া সত্ত্বেও তৃণমূল ৯০ শতাংশ আসনে জয়ী হয়েছে-যেটা দুর্লভ। এটাতেই প্রমাণিত হয় যে আমরা কতটা গভীরে গিয়েছি’। তিনি বলেন ‘যারা জিতেছেন তাদের অভিনন্দন, আর যারা হেরেছেন তাদেরও দু:খ পাওয়ার কারণ নেই। ভাল করে কাজ করুন। কোন না কোন কাজে তাদের ডেকে নেওয়া হবে’।
ভোটের দিন বাংলাদেশ থেকে লোক ঢোকানো হয় বলেও এদিন অভিযোগ করেছেন মমতা। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন ‘দক্ষিণ দিনাজপুর, উত্তর দিনাজপুর, বনগাঁ, বাগদা, গাইঘাটা, বসিরহাট-বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকা। আপনারা যদি লক্ষ্য করেন তবে দেখবেন পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ওখানে (বনগাঁ) বাংলাদেশ থেকে মানুষকে ঢুকতে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ওইদিন কেন বাংলাদেশের মানুষকে এখানে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল? এর জন্য সেখানে কিছুক্ষণের জন্য নির্বাচন বন্ধ ছিল। তার প্রশ্ন রাজ্য সরকারের অনুমতি না নিয়ে কেন সেদিন বিএসএফ নেমেছিল? এই নির্বাচনে প্রচুর রুপির খেলা হয়েছে বলেও অভিযোগ মমতার। পাশাপাশি নির্বাচনে সহিংসতায় প্রাণহানির ঘটনায় দু:খপ্রকাশ করেন তিনি।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow