Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৩ জুন, ২০১৮ ০৮:৩১ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৩ জুন, ২০১৮ ১০:২৬
শেষ মুহূর্তে চীন সফর বাতিল মমতার
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
শেষ মুহূর্তে চীন সফর বাতিল মমতার

বিনিয়োগ, কর্মসংস্থানের লক্ষ্য নিয়েই ৮ দিনের চীন সফরে যাওয়ার কথা ছিল পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। চীন সরকারের আমন্ত্রণেই ভারত সরকারের প্রতিনিধি হয়েই বেইজিং ও সাংহাইতে চীনের বেশ কয়েকটি বাণিজ্য সংস্থার সাথে বৈঠক করার কথা ছিল। সাক্ষাৎ হওয়ার ছিল চীনের প্রাদেশিক নেতাদের সাথেও। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত কর্মসূচির বাইরে ২৫ জুন বেইজিংয়ে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রথম সারির নেতাদের সাথেও বৈঠক করার কথা ছিল মমতার। এছাড়াও একাধিক কর্মসূচি ছিল তাঁর। সেইমতো গত কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রস্তুতি চলছিল। শুক্রবার রাতেই তাঁর কলকাতা থেকে উড়ে যাওয়ার কথা ছিল বেইজিংয়ের। মমতার সাথেই সফরসঙ্গী হিসেবে থাকার কথা ছিল রাজ্যটির অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র ও মুখ্যসচিব মলয় দেসহ আরও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের প্রধান সচিবদের। কিন্তু একেবারে শেষ মুহূর্তে তার সেই সফর বাতিল হলো। 

রাতে বিমান ছাড়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই এদিন বিকালে সংবাদ সম্মেলন করে মমতার এই সফর বাতিলের কথা জানান অমিত মিত্র। তিনি বলেন, আজ রাতে মুখ্যমন্ত্রী চীনে যাচ্ছেন না। কারণ সেখানে যে রাজনৈতিক বৈঠক হওয়ার কথা ছিল, সেটা এখনও পর্যন্ত নিশ্চয়তা দেয়নি চীন সরকার। তাই চীন সরকার থেকে কোনো অনুমোদন না আসার পরই এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। 

ভারত-চীন উভয় দেশের মধ্যে কূটনৈতিক আদানপ্রদানের লক্ষ্যেই চলতি বছরের মার্চে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ চিঠি লিখে মমতা ব্যানার্জিকে প্রতিনিধি দল নিয়ে চীনের যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। এরপর এপ্রিলে মমতাও সেই প্রস্তাবে সাড়া দেন। এরপরই মমতার চীন সফরসূচির একটি খসড়া তৈরি করা হয়। জানা যায়, চীনের তরফেই সেই খসড়া সফরসূচিতেই রাজনৈতিক বৈঠকের কথাও উল্লেখ করা হয়। কিন্তু তিন মাসেও বেইজিং’এর তরফে সেই সফরসূচি চূড়ান্ত করার কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় এই সফর বাতিল করা হয়। 

সফর বাতিল হওয়ার পরই এক বিবৃতি দিয়ে সফরের ব্যখ্যা দিয়ে মমতা জানান, ‘আমার নেতৃত্বে চীনের প্রতিনিধি দল পাঠানোর ব্যাপারে ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী যে প্রস্তাব পাঠিয়েছিলেন, তাঁর সেই প্রস্তাবকে প্রশংসা জানিয়ে আমি চলতি বছরের ২ এপ্রিল আমার তরফে সম্মতি জানাই। আমি তাঁকে জানাই যেখানে আমার দেশের স্বার্থ জড়িয়ে রয়েছে, সেখানে চলতি বছরের জুনের শেষ দিকে আমি চীনে যেতে চাই’। 

মমতা আরও জানান, ‘বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সবকিছু ভাল ছিল, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত চীনের ভারতীয় দূতাবাসের তরফে আমাদেরকে জানানো হয় যে যথোপযুক্ত পদমর্যাদার রাজনৈতিক বৈঠকের ব্যাপারে চীন সরকারের তরফে কোন নিশ্চয়তা দেওয়া হয়নি। যদিও আমাদের রাষ্ট্রদূতের তরফে সর্বত্র চেষ্টা করা হয়েছিল। সেক্ষেত্রে চীনে প্রতিনিধি দল নিয়ে যাওয়ার কোন অর্থই হয় না’। 

বিডি-প্রতিদিন/২৩ জুন, ২০১৮/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow