Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৫ মে, ২০১৮ ২২:৫৭
নারায়ণগঞ্জে যানজট নিরসনে রাজপথে ছাত্রলীগ
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়ে কয়েক মাস ধরে দুর্বিষহ যানজটে নাকাল নগরের চিত্র পাল্টে দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ ছাত্রলীগ। জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির কয়েক শ নেতা-কর্মী গতকাল সকালে নগরের মোট আটটি পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে যানজট নিরসনে কাজ শুরু করেন। নতুনদের পাশে উৎসাহ ও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে রাস্তায় নেমেছেন ছাত্রলীগের সাবেক নেতারাও। আর এ উদ্যোগের জন্য ছাত্রলীগের প্রতি সাধুবাদ জানিয়েছেন নগরবাসী। এদিকে ছাত্রলীগের এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের আহ্বান জানানো হলেও তাদের কেউ আসেননি বলে জানা গেছে। এ নিয়ে ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক নেতাদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে গেলে অনীহা প্রকাশ করেছেন প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারাও। তবে ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ দাবি করেছেন, এ উদ্যোগের সাথী হতে আমরা জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারকে আমন্ত্রণ জানালেও তারা আসেননি। এমনকি তাদের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিনিধিও আসেননি। কারণ, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে হয়তো নিজেদের আড়াল করে রাখতেই জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা ছাত্রলীগের এ উদ্যোগের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ত করতে চাননি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নগরবাসীকে দুর্বিষহ যানজটের কবল থেকে রেহাই দিতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়ে রাস্তায় নামে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি। নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্তি ফিরিয়ে দিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে শহর ও শহরতলির ১ ও ২ নম্বর রেলগেট, গ্রিন লেইজ মোড়, চাষাঢ়া চত্বর, ডাকবাংলা মোড়, পঞ্চবটী মোড়, মাসদাইর কবরস্থান ও ফতুল্লা বাজার— এ আটটি পয়েন্টে যানজট নিরসনে কাজ করেন ছাত্রলীগের কয়েক শ নেতা-কর্মী। ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা এ সময় অনেকটা ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে কাজ করেন। অনেককে দেখা গেছে অতিরিক্ত মালবাহী ভ্যান বা রিকশা ঠেলে দিচ্ছেন। বিষয়টি নিয়ে নগরবাসী প্রশংসার সুরে বলেছেন, সাম্প্রতিককালে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছাত্রলীগের নানা কর্মকাণ্ডে যেখানে সংগঠনটি বার বার সমালোচিত হয়েছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ ছাত্রলীগের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। শহরের ২ নম্বর রেলগেট এলাকায় মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ বলেন, ‘এর আগেও আমরা স্থানীয় এমপি শামীম ওসমানের নেতৃত্বে রাস্তায় নেমেছিলাম যানজটমুক্ত করতে।’ জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রাফেল বলেন, ‘যানজটের অন্যতম প্রধান কারণ অবৈধ গাড়ি পার্কিং।’ রাফেল বলেন, ‘শহরে সিটি করপোরেশনের প্লেটধারী রিকশার সংখ্যা এতটাই বেশি যে যানজট নিরসনে হিমশিম খেতে হচ্ছে।’ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানি বলেন, ‘আমরা ভোর হতে রাস্তায় থেকে দেখলাম এ শহরে পুলিশের ট্রাফিক আইন শুরু হয় সকাল ১০টার পর।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow