Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৩ মার্চ, ২০১৮ ১৫:১৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৩ মার্চ, ২০১৮ ১৮:১৬
এখনো মুছেনি বিয়ের মেহেদী...
বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
এখনো মুছেনি বিয়ের মেহেদী...

এখনো হাতের মেহেদী মুছেনি। বিয়ের আঙটি যে আঙুলে, সেটি এখন নিথর, অনুভূতিহীন। তবে সেই আঙুলে মেহেদীর ছোপ ছোপ রঙ। এমনই একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। 

জানা গেছে, নিহত তরুণীর নাম আঁখি মনি। ১০ দিন আগে গত ৩ মার্চ পরিবারের সম্মতিতেই বেশ ধুম-ধাম আয়োজনের মধ্যে দিয়ে মাস্টার্স পাস করা এই তরুণীর। বর মিনহাজ বিন নাসির। বিয়েতে হাতে লাগানো মেহেদির রঙ শুকায়নি আঁখি মনির। বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে চলে আসেন ঢাকার ধানমন্ডির একটি নতুন ফ্ল্যাটে। সেখানে সংসারটাও ঠিকমতো গোছানো হয়নি। এরই মধ্যে আঁখি মনিকে পৃথিবীর মায়া ছাড়তে হয়েছে।

আঁখি মনির ইচ্ছে অনুযায়ী হিমালয়কন্যার দেশ নেপালে যাওয়ার জন্য গত সপ্তাহে টিকিট বুকিং দেয়া হয়।পরিবারের লোকজন সোমবার বেলা ১১টায় তাদের এয়ারপোর্টে পৌঁছে দিয়ে আসে। একই দিন দুপুরে কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমানে স্বামীর পাশেই ছিলেন আঁখি মনি।

নেপাল সরকারের দেয়া মৃতদের তালিকার ৩৭ ও ৩৮ নম্বর সিরিয়ালে রয়েছে আঁখি মনি ও তার স্বামী মিনহাজ বিন নাসিরের নাম। এমন দুর্ঘটনায় আঁখি মনির বাবা-মা মেয়ের শোকে পাগলপ্রায়। যাওয়ার সময় কী এক অজানা আশঙ্কায় আঁখি মনি বাবাকে জড়িয়ে ধরে কেঁদেছিল। সেই অজানা আশঙ্কায়ই যেন এখন সত্যি হল!

মেয়ের টানে মঙ্গলবার সকালে নেপালের উদ্দেশ্যে দেশ ছেড়েছেন আঁখি মনির বাবা। নব দম্পতির আত্মার মাগফেরাত কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছে আঁখি মনির পরিবার।

আঁখি মনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রুপসদী গ্রামের পেশকার মিয়ার মেয়ে। 

বিডি-প্রতিদিন/১৩ মার্চ, ২০১৮/ফারজানা/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

up-arrow