Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৫ মে, ২০১৮ ২৩:০০
মামলা, গ্রেফতার ২
শিকল দিয়ে বেঁধে শিশু নির্যাতন
শরীয়তপুর প্রতিনিধি

বাড়ির উঠানে একটি কাঁঠাল গাছ, কোমর ও হাতে শিকল পরিয়ে ওই গাছের সঙ্গে বেঁধে এক শিশুকে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি শরীয়তপুর সদর উপজেলার উত্তর চন্দ্রপুর গ্রামের। নির্যাতনের শিকার ওই শিশুর নাম শামীম মোল্লা (১১)। সে ওই গ্রামের খোকন মোল্লার ছেলে। অভিযোগ উঠেছে, ওই গ্রামের হালিম ব্যাপারী তার বাড়িতে চুরি করার অপবাদ দিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।

নির্যাতনের শিকার শামীম ও তার বাবা খোকন মোল্লা ১০ মে থেকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। শামীমের মা ফাহিমা বেগম বাদী হয়ে এ ঘটনায় সোমবার রাতে শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় হালিম ব্যাপারী, তার স্ত্রী রাহিলা বেগমসহ পাঁচজনকে আসামি করেছেন। পুলিশ গতকাল মামলার আসামি করম আলী ব্যাপারী ও সাহেব আলী ব্যাপারীকে গ্রেফতার করেছে। পালং মডেল থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উত্তর চন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা খোকন মোল্লার ছেলে শামীম স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। পড়ালেখার পাশাপাশি সে তার বাবার সঙ্গে ভ্যানগাড়ি চালায়।

তাদের প্রতিবেশী হালিম ব্যাপারীর বাড়িতে ২ মে চুরি হয়। হালিমের ঘরে চুরি করেছে এমন অজুহাতে ৯ মে সকালে শামীমকে ধরে আনেন হালিম ব্যাপারী ও তার স্ত্রী রাহিলা। ধরে এনে বাড়ির উঠানে গাছের সঙ্গে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। তাকে উদ্ধার করতে তার বাবা খোকন মোল্লা গেলে তাকেও বেঁধে নির্যাতন করা হয়। খবর পেয়ে ওই এলাকার সন্তোষপুর পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ তাদের করে। মামলা হওয়ার পরই গ্রাম থেকে পালিয়েছেন হালিম ব্যাপারী ও তার স্ত্রী রাহিলা বেগম। গতকাল তাদের বাড়ি গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। পালং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন কবীর বলেন, দুজন আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি তিনজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow