Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১২ জুন, ২০১৮ ১৪:৫৯ অনলাইন ভার্সন
নিউইয়র্কে ‘৩ দিনব্যাপী বাংলা বইমেলা’র সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন
এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে :
নিউইয়র্কে ‘৩ দিনব্যাপী বাংলা বইমেলা’র সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

নিউইয়র্কে শুক্রবার শুরু হবে ২৭তম বইমেলা। মেলার অতিথিরা আসতে শুরু করেছেন। এরইমধ্যে  লেখক আনিসুল হক এবং কালি ও কলম সম্পাদক ও বেঙ্গল প্রকাশনার নির্বাহী আবুল হাসনাত আমেরিকায় পৌঁছেছেন।

 বাংলাদেশ থেকে ২০টি প্রকাশনা সংস্থা ও অধ্যাপক আবদুল্লাহ সায়ীদ, রামেন্দু মজুমদার, বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, লেখক আনোয়ারা সৈয়দ হকসহ প্রায় ২০জন কবি-লেখক-সাহিত্যিক নিউইয়র্ক বইমেলায় যোগ দিতে আগামি সপ্তাহে নিউইয়র্ক পৌঁছাবেন বলে মেলা কমিটির আহ্বায়ক ডঃ নূরুন নবী সূত্রে জানা গেছে। 

উল্লেখ্য ২২ জুন শুক্রবার জ্যাকসন হাইটসের বেলাজিনো পার্টি সেন্টারে বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং ২৩ ও ২৪ জুন অর্থাৎ শনি ও রোববার জ্যাকসন হাইটসের পিএস ৬৯ মিলনায়তনে বইমেলা অনুষ্ঠিত হবে। 

ডঃ নবী আরো জানান, এ বছরের মেলায় বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য সাহিত্য পুরষ্কারের নতুন নামকরণ হয়েছে ‘মুক্তধারা/জিএফবি পুরষ্কার’। নিউজার্সির বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও সাহিত্যানুরাগী গোলাম ফারুক ভুঁইয়ার অর্থানুকুল্যে প্রতিষ্ঠিত এই পুরষ্কারের মূল্যমান নির্ধারিত হয়েছে ২৫০০.০০ ডলার।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে থেকে সাহিত্য পুরস্কার প্রদান করা হয়ে আসলেও নিউইয়র্ক বইমেলায় এবারই প্রথমবারের মত একটি প্রকাশনা পুরস্কার প্রবর্তিত হচ্ছে। বইমেলায় যেসব প্রকাশকবৃন্দ অংশ নেবেন তাঁদের ভেতর থেকেই শ্রেষ্ঠ প্রকাশককে বেছে নেওয়া হয়। চারটি নীতিমালার ভিত্তিতে এই পুরষ্কার নির্ধারিত হবেঃ প্রদর্শিত গ্রন্থ সমূহের মান, প্রদর্শনী স্টলের মান এবং প্রবাসী লেখকদের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গী। মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী হিসাবে পরিচিত কোন প্রকাশনা সংস্থা এই পুরষ্কার পাবেন না, বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে এই সিদ্ধান্তও গৃহীত হয়।
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের রেকর্ডসংখ্যক প্রকাশক যোগ দিচ্ছেন ২৭তম নিউইয়র্ক বইমেলায়। যোগ দিচ্ছেন জাতীয় গ্রন্থ কেন্দ্র পরিচালক এ কে রেজাউল করিম, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির সভাপতি ও সময় প্রকাশনের কর্ণধার ফরিদ আহমেদ, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সভাপতি আরিফ হোসেন ছোটন,  বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সহ-সভাপতি  ও  পুথিনিলয়ের স্বত্বাধিকারী শ্যামল পাল, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির নির্বাহী পরিচালক ও অনন্যা প্রকাশনার স্বত্বাধিকারী মনিরুল হক, নিউইয়র্ক বইমেলা কর্তৃক ঘোষিত চিত্তরঞ্জন সাহা প্রকাশনা পুরস্কার-এর সহযোগী ও কথাপ্রকাশ এর স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মাওলা ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী আহমেদ মাহমুদুল হক, কালি ও কলম সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক ও বেঙ্গল প্রকাশনের নির্বাহী আবুল হাসনাত, প্রথমা প্রকাশনের নির্বাহী জাফর আহমেদ রাশেদ। আরো যোগ দিচ্ছেন অঙ্কুর প্রকাশনার প্রধান পরিচালক মেজবাউদ্দীন আহমেদ, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির পরিচালক ধ্রুবপদের স্বত্বাধিকারী এম ডি আবুল বাশার ফিরোজ শেখ, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির পরিচালক ও তাম্রলিপি প্রকাশনার স্বত্বাধিকারী এ কে এম তারিকুলইসলাম রনি, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থার পরিচালক ও সন্দেশ প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী লুৎফর রহমান চৌধুরী , গতিধারা প্রকাশনার স্বত্বাধিকারী এমডি আবুল বাশার শিকদার, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির প্রাক্তন সভাপতি ও আকাশ প্রকাশনার স্বত্বাধিকারী আলমগীর শিকদার লোটন, ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ পরিচালক জহিরুল আবেদীন জুয়েল, নালন্দা প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ রেদওয়ানুর রহমান জুয়েল, লেখক আহমেদ মুসা,  সৃজনকাল ও বাংলা গবেষনা, মদিনা পাবলিকেশন্সের পরিচালক সালমান খান ও আলপনার রান্নাঘর-এর আলপনা হাবিব। 

উত্তর আমেরিকা থেকে যেসব বই বিক্রেতা ও প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান রেজিস্ট্রেশন করেছে তাদের মধ্যে রয়েছে মুক্তধারা নিউইয়র্ক, ঘুংঘুর, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন নিউ ইয়র্ক, ইসলাম ইন্টারন্যাশনাল পাবলিকেশন্স, পঞ্চায়েত প্রকাশন, গ্লোবাল বাংলা মিশন, মোহাম্মদ লুৎফুর রহমান বিনু।

বিডি-প্রতিদিন/ ই-জাহান

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow