Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৬ এপ্রিল, ২০১৮ ২১:৩৮
ফোর্বসের দৃষ্টিতে
এশিয়ার সেরা উদ্যোক্তা দুই বাংলাদেশি তরুণ
এশিয়ার সেরা উদ্যোক্তা দুই বাংলাদেশি তরুণ
টেন মিনিটস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক - স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ‘চেঞ্জ’-এর প্রধান সাজিদ ইকবাল

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রভাবশালী সাময়িকী ফোর্বস চলতি বছরে এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা প্রকাশ করেছে। ‘থার্টি (৩০) আন্ডার থার্টি (৩০) এশিয়া ২০১৮ : দ্য সোস্যাল এনটারপ্রেনারস ব্রিঙ্গিং পজিটিভ চেইঞ্জ টু এশিয়া’ শিরোনামে এই তালিকা গত ২৬ মার্চ প্রকাশ করে ফোর্বস। এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ২৪টি দেশ থেকে ২ হাজার তরুণের উদ্যোগকে ফোর্বসের এ তালিকার জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হয়। এরপর সেখান থেকে যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে চূড়ান্ত তালিকাটি প্রকাশ করা হয়। ওই তালিকায় এসেছে বাংলাদেশের দুই তরুণ উদ্যোক্তার নাম। তারা হলেন— অনলাইন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান  টেন মিনিটস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ’র সাবেক ছাত্র আয়মান সাদিক (২৬) এবং পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত ‘চেঞ্জ’ নামের স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের প্রধান সাজিদ ইকবাল (২৭)। পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্যে সাজিদ ইকবাল ২০১২ সালে চেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করেন। প্ল্যাস্টিকের বোতল ব্যবহার করে পরিবেশসম্মত বিকল্প জ্বালানির ব্যবস্থা করতে ওই সময় একটি প্রকল্প চালু করেন তিনি। ‘বোতলবাতি’ নামে তার এই প্রকল্প দ্রুত ব্যাপক সাড়া পায়। দিনের  বেলায় বস্তির অন্ধকার ঘরে সূর্যের আলো ব্যবহার করে তৈরি হয় এই বোতলবাতি। শুধু ঘরেই নয়, বড় বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানে পরিবেশসাশ্রয়ী বাতি পৌঁছে দিতে সোলার পাইপ লাইট নামের একটি প্রকল্প নিয়েও কাজ করে তার প্রতিষ্ঠান। ফোর্বস বলছে, জার্মানির একটি সংস্থার সহায়তায় বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া অন্তত ৪ হাজার মানুষের ঘরে বোতলবাতির আলো পৌঁছে দিয়েছেন সাজিদ। তার এই প্রতিষ্ঠান সৌর লণ্ঠন, সড়ক বাতি, ক্ষুদে সেচ পাম্প প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছে। এর আগে বাংলাদেশের এই তরুণ উদ্যোক্তা প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনূস পদক, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর, ব্রিটিশ রানীর কাছে  থেকে কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস-২০১৭ লাভ করেন। অন্যদিকে শিক্ষামূলক সংগঠন হিসেবে ২০১৫ সালে ‘টেন মিনিট স্কুল’ প্রতিষ্ঠা করেন শিক্ষা উদ্যোক্তা আয়মান সাদিক। ওই সময় মোবাইল অপারেটর রবির সহায়তায় তিনি এই অনলাইন স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। যার লক্ষ্য ছিল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা; যেখান থেকে মানুষ শিক্ষা অর্জন করতে পারবে। টেন মিনিটস স্কুল ইউটিউব এবং ফেসবুকে সংক্ষিপ্ত লেকচারসমৃদ্ধ ভিডিও প্রকাশ করে। বাংলায় ভিডিওচিত্র নির্মাণের পাশাপাশি অনলাইনে লাইভ ক্লাসও নিয়ে থাকে সাদিকের এই অনলাইন স্কুল। ফোর্বসের তালিকায় প্রথমবারের মতো আজারবাইজান, উত্তর  কোরিয়া ও ফিজির তরুণেরা স্থান পেয়েছেন। ভারত ও চীনের তরুণেরা এ তালিকায় সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছেন।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow