Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৬ এপ্রিল, ২০১৮ ২১:৪১
থ্রিডি প্রিন্টারের তৈরি বাড়ি
সাইফ ইমন
থ্রিডি প্রিন্টারের তৈরি বাড়ি

থ্রিডি প্রিন্টারে নানারকম জিনিস তৈরির কথা সবাই শুনেছেন ইতিমধ্যেই। নির্মাণ শুরু হয়েছে থ্রিডি প্রিন্টারের তৈরি বাড়ি। যেখানে আপনি বসবাস করতে পারবেন স্বচ্ছন্দেই। ইতিমধ্যে বিশ্বের নানা প্রান্তে থ্রিডি প্রিন্টিং টেকনোলজিতে সফলতা পাচ্ছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো—

 

থ্রিডি প্রিন্টিং টেকনোলজি এগিয়ে গেছে আরেক ধাপ। থ্রিডি প্রিন্টারে তৈরি নানারকম জিনিস তৈরির সঙ্গে শুরু হয়েছে থ্রিডি প্রিন্টারের তৈরি বাড়িও। যেখানে আপনি বসবাস করতে পারবেন স্বাচ্ছন্দ্যেই। দারুণ না বিষয়টা! ইতিমধ্যেই বিশ্বের নানা প্রান্তে থ্রিডি প্রিন্টিং টেকনোলজিতে সফলতা পাচ্ছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। চ্যারিটি এবং আইকন কনস্ট্রাকশন ইনকরপোরেশনের যৌথ উদ্যোগে এবার তৈরি হতে যাচ্ছে থ্রিডি প্রিন্টেড বাড়ি। এই বাড়ি তৈরি করতে সর্বোচ্চ একদিন লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন এর নির্মাতারা। প্রাথমিকভাবে মাত্র ১০,০০০ মার্কিন ডলার খরচ হতে পারে এর নির্মাণকাজে। তবে সেই খরচ ৪,০০০ ডলারে নামিয়ে আনা হবে বলেও জানানো হয়েছে। পৃথিবীজুড়ে প্রায় ১.২ বিলিয়ন মানুষ গৃহহীন মানুষের জন্যই আইকন এবং নিউ স্টোরির এমন যৌথ উদ্যোগের কথা তারা প্রকাশ করে টেক্সাসে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া এসএক্সএসডব্লিউ কনফারেন্সে। থ্রিডি প্রিন্টিং পদ্ধতির সাহায্যে ৬৫০ বর্গফুট জায়গার মধ্যে একতলা বিশিষ্ট বাড়ি নির্মাণ করবে তারা। সফল হলে প্রায় ১০০টি গৃহ এল সালভাদরের বাসিন্দাদের জন্য তৈরি করা হবে আগামী বছর। প্রতিটি বাড়ি তৈরিতে সময় লাগবে ১২-২৪ ঘণ্টা। একটি মডেল বাড়িও উপস্থাপন করা হয়েছে। মডেল বাড়িটিতে আছে একটি  বেডরুম, লিভিং রুম, বাথরুম এবং একটি বাঁকানো বারান্দা। সঙ্গে আছে আরও কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস, যা লাগে বসবাসের জন্য। এর কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহূত হয়েছে সিমেন্ট। শুরুর দিকে এল সালভাদর, বলিভিয়া এবং হাইতিবাসীদের জন্য থ্রিডি বাড়িগুলো নির্মাণ করবে বলে জানিয়েছে আইকনের এক প্রতিষ্ঠাতা জেসন বালার্ড। পরে তা বিশ্বব্যাপী ছড়ানোর পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠান দুটি। তাদের থ্রিডি প্রিন্টারের মাধ্যমে ৮০০ বর্গফুট পর্যন্ত বাড়ি নির্মাণ করা যাবে। থ্রিডি প্রিন্টেড বাড়ি এর আগেও বানানো হয়েছে। ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে থ্রিডি প্রিন্টিং প্রযুক্তি। ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ থেকে প্রমাণ সাইজের গাড়ি, সবকিছুই এখন নির্মাণ করা হচ্ছে থ্রিডি প্রিন্টিংয়ের মাধ্যমে। আস্ত একটি দোতলা বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছিল থ্রিডি প্রিন্ট করে। চারশ স্কয়ার মিটারের এই দোতলা বাড়িটি অবস্থিত চীনের রাজধানী বেইজিং শহরে। থ্রিডি প্রিন্টেড বাড়ি হলেও একে দুর্বল বলে ভেবে নেওয়ার কোনোই কারণ নেই। আড়াই মিটার প্রশস্ত করে নির্মিত হয়েছে এই বাড়িটির দেয়াল, যা কিনা রিখটার স্কেলে আট মাত্রার মতো শক্তিশালী কোনো ভূকম্পনেও টলে পড়বে না। পুরো বাড়িটি নির্মাণে সময় লেগেছিল মাত্র ৪৫ দিন!

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow