Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ৫ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৪ মে, ২০১৮ ২১:৪৪
নীল চোখের বিজ্ঞান
শনিবারের সকাল ডেস্ক
নীল চোখের বিজ্ঞান

বিশ্ববিখ্যাত সংগীতশিল্পী টেইলর সুইফট থেকে শুরু করে অনেকেই নীল চোখের অনন্যসুন্দরী। কিন্তু তিনি কীভাবে পেলেন এই নীল চোখ, যা তাকে ব্যতিক্রম করে তুলেছে। নীল চোখ আমাদের কাছে খুব ব্যতিক্রম মনে হলেও বাস্তবে কিন্তু তা নয়। ব্রিটেনের প্রায় ৪৮% মানুষ নীল চোখের অধিকারী।

কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের গবেষণায় জানা যায়, বর্তমান মানুষদের মাঝে নীল  চোখের বৈশিষ্ট্যটি একটিমাত্র সাধারণ পূর্বপুরুষ থেকে এসেছে। গবেষণায় আমাদের জিনোমে প্রায় ১০ হাজার বছর পূর্বের একটি মিউটেশনের সন্ধান পাওয়া যায়। বিজ্ঞানীরা বলছে এই মিউটেশনই বর্তমান নীল  চোখের জন্য দায়ী।

কিন্তু এই মিউটেশন? অধ্যাপক হানস এইবার্গ তার ব্যাখ্যায় বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে আমরা সব মানুষই বাদামি  চোখের অধিকারী ছিলাম। কিন্তু আমাদের ক্রোমোসোমের OCA নামক একটি জিনে মিউটেশন ঘটে। মিউটেশনের ফলে এমন একটি ‘জেনেটিক সুইচ’ গঠিত হয় যা আমাদের বাদামি চোখ গঠন বন্ধ করে দেয়।’ OCA জিন একটি প্রোটিনের জন্য কোড করে। এই প্রোটিন আবার কোষে মেলানিন প্রস্তুতের সঙ্গে জড়িত। আর এই মেলানিন আমাদের চুল, চোখ ও ত্বকের রঙের জন্য দায়ী। প্রকৃতপক্ষে, মিউটেশনের ফলে উদ্ভূত ‘সুইচ’ OCA জিনের কাজ সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করে দেয় না। এটি বরং এই জিনের বহিঃপ্রকাশকে অনেকাংশে বাধাগ্রস্ত করে। যার ফলে মেলানিন উৎপাদন হ্রাস পায় এবং বাদামি আইরিশের পরিবর্তে নীল আইরিশ গঠিত হয়।

OCA জিনের ওপর ‘সুইচ’টির প্রভাব খুবই নির্দিষ্ট। কারণ, OCA জিন সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয়ে গেলে মানুষের চুল, ত্বক ও চোখ মেলানিনবিহীন হতো। এ রকম অবস্থাকে বলা হয় ধবলরোগ। বাদামি থেকে সবুজ চোখের রঙের ক্ষেত্রে সব বৈচিত্র্য আইরিশের বিদ্যমান মেলানিনের পরিমাণ দ্বারা ব্যাখ্যা করা যায়। কিন্তু নীল চোখের ব্যক্তিদের  চোখে মেলানিনের খুব সামান্য মাত্রারই বৈচিত্র্য রয়েছে। এইবার্গ বলেন, ‘এ ঘটনা থেকে আমরা বলতে পারি যে, নীল চোখের সব মানুষ একটিমাত্র পূর্বপুরুষের সঙ্গে সম্পর্কিত। তাদের সবার ডিএনএ-র একই জায়গায় একই রকম ‘সুইচ’ উদ্ভাবিত হয়েছে।’ অন্যদিকে বাদামি চোখের ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ডিএনএ-র  মেলানিন উৎপাদনের জন্য দায়ী স্থানটি হুবহু এক না হয়ে অনেকটা বৈচিত্র্যপূর্ণ হয়। প্রকৃতি আমাদের জিনকে অদলবদল করে মিউটেশনের ফলে বাদামি চোখ থেকে নীল চোখ সৃষ্টি কোনো ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক নয়। এটি একটি নিরপেক্ষ মিউটেশন।’

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow