Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ৫ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৪ মে, ২০১৮ ২১:৪৫
অণু
প্রথমবারের মতো আলোর অণু তৈরি
শনিবারের সকাল ডেস্ক
প্রথমবারের মতো আলোর অণু তৈরি

পাঁচ বছর আগেই হার্ভার্ড এবং এমআইটির পদার্থবিজ্ঞানীরা পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম বারের এক অসাধ্য সাধন করেন। তারা ২টি ফোটনকে এমনভাবে মিথস্ক্রিয়া করাতে সক্ষম হয়েছিলেন যা আপাত দৃষ্টিতে এক প্রকার অসম্ভব একটি প্রক্রিয়া। এই অসাধ্য সাধন করার পর তৃতীয় একটি ফোটনকে এদের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া নিশ্চয়ই পরবর্তী কাজ। পদার্থবিদরা সর্বদাই আলোর কণাগুলোকে বিভিন্নভাবে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে এসেছেন। কিন্তু সাধারণত আলোর এই ভরহীন কণাগুলোকে একে অপরের সঙ্গে তেমন কোনো মিথস্ক্রিয়া করতে দেখা যায় না। পলে আপাত দৃষ্টিতে এটি একটি অসম্ভব প্রক্রিয়া। আমাদের লার্জ হ্যাড্রন কলাইডারগুলোর মতো বড় বড় কলাইডারগুলোতে বিভিন্ন মৌলিক কণার মাঝে সংঘর্ষ ঘটানো হয় এবং এ সংঘর্ষের ফলাফল থেকে নতুন নতুন কিছু জানার চেষ্টা করা হয়। এ কথা কিন্তু ফোটনের বেলায় খাটে না। কারণ ফোটনগুলো একে অপরের সঙ্গে মিথস্ক্রিয়া করে না। সেখানে দুটি শক্তিশালী এবং বিপরীতমুখী লেজার রশ্মির সংঘর্ষ ঘটিয়েও তেমন কোনো নতুন ফলাফল দেখতে পাওয়া যায় না।  বছরের পর বছর ধরে বিজ্ঞানীরা ফোটনের এই বৈশিষ্ট্যকে নিয়ে তত্ত্বই দাঁড় করিয়েছেন।

ফলাফল আর পাওয়া যায়নি। অবশেষে ২০১৩ সালে এর বাস্তবিক রূপ তারা দেখতে পেয়েছিলেন। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ মিখাইল লুকিন বলেছিলেন, ‘আমরা এমন একটি মাধ্যম তৈরি করেছি যেখানে আলোর কণাগুলো একে অপরের সঙ্গে মিথস্ক্রিয়া করে। তারা এত শক্তিশালীভাবে এটি করে যে, মনে হয় তাদের ভর রয়েছে এবং তারা সংঘবদ্ধ হয়ে আলোর অণু তৈরি করেছে।’ সহজ ভাষায় দুটি অক্সিজেন পরমাণু ব্যবহার করে একটি অক্সিজেন অণু তৈরি করতে পারি।

আবার, তিনটি অক্সিজেন পরমাণুর সমন্বয়ে ওজন অণু তৈরি করতে পারি।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow