Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৫ মে, ২০১৮ ২১:১৪ অনলাইন ভার্সন
ফুটবলে অনীহা দেখাচ্ছে ‍‍'ফুটবলের দেশ‍‍'!
অনলাইন ডেস্ক
ফুটবলে অনীহা দেখাচ্ছে ‍‍'ফুটবলের দেশ‍‍'!

দেশের মোট জনসংখ্যার ৬৪ শতাংশ মানুষ ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে উৎসাহী নন। ১৪.৫ শতাংশ মানুষ আবার এবারের বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর কোথায়, কবে থেকে বসছে তাই জানেন না। দেশটার নাম? শুনলে নির্ঘাত অবাক হবেন। ফুটবল নিয়ে এতটাই অনীহা এখন ব্রাজিলে। যে দেশ কিনা 'ফুটবলের দেশ' নামে বিখ্যাত।

২০১৪ সালে ব্রাজিলে ফুটবলের মহাযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। নেইমারের দেশের অধিকাংশ মানুষ কিন্তু সেবারও ফুটবলের দিকে ফিরে তাকাতে চাননি। আর এর পেছনে অন্যতম কারণ হলো রাজনৈতিক অস্থিরতা। তার উপর অর্থনৈতিক ব্যবস্থাতেও দুর্নীতির কালো ছায়া। তাই এমন অস্থির পরিস্থিতিতে দেশের মানুষ ফুটবল নিয়ে ডুবে থাকতে চাননি। বরং ব্রাজিলের একাংশ বিশ্বকাপের মঞ্চকে কাজে লাগিয়ে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ উগড়ে দিতে চেয়েছিলেন। সেই মতো ২০১৪ বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিলজুড়ে গনআন্দোলন প্রবল আকার নিয়েছিল। কিন্তু প্রশাসন শেষমেশ কড়া হাতে তা দমন করে। কম-বেশি নাশকতা হয়েছিল সে সময়। কিন্তু বিশ্বকাপের যজ্ঞ সম্পন্ন হয়েছিল ভালোভাবেই। 

বিশ্বকাপ শুরুর বেশ কয়েকদিন আগে থেকেই ব্রাজিলের রিও ডি জেনেইরোর রাস্তায় শুরু হয়ে যায় স্ট্রিট পার্টি। ৪০ বছরের পুরনো এই প্রথার পোশাকি নাম 'আলজিরাও'। রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু হতে বাকি মাত্র আর ২০ দিন। অথচ এবার এখনো আলজিরাও শুরু হওয়ার নাম-গন্ধ নেই। সব থেকে খারাপ খবর, আলজিরাও এবার তার দশ বছরের পুরনো স্পনসরশিপ হারিয়েছে। ফলে ১৪ জুন রাশিয়ায় ফুটবলের মহাযজ্ঞ শুরু হওয়ার আগে এই বহু পুরনো প্রথা শুরু হবে কিনা সন্দেহ রয়েছে।

খুব কম সংখ্যক ব্রাজিলিয়ান নেইমার, মার্সেলোদের খবরা খবর রাখছেন। তাদের মধ্যে একটা বড় অংশ অবশ্য বিশ্বাস করে, ব্রাজিলের এই দলটা ষষ্ঠবার বিশ্বকাপ জেতার ক্ষমতা রাখে। আবার একাংশ মনে করে, ব্রাজিল দলটাকে একার কাঁধে টেনে নিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রয়েছে নেইমারের। এর মাঝে অবশ্য একটা কথা বলে রাখা দরকার। 

রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে ব্রাজিল কতটা উত্তেজনায় ফুটছে? আদতে এটা নিয়েই গবেষণা করতে চেয়েছিল ব্রাজিলের পানামা ইনস্টিটিউট। গবেষণায় যা উঠে এলো তাতে তারা নিজেরাই চমকে গেছে। যাবতীয় পরিসংখ্যানের হিসাব তাদেরই দেয়া। 

ব্রাজিল ফুটবলের প্রশাসকরা ২০১৪-এর মতো এবারও একই সুরে গান গাইছেন। তাদের দাবি, নেইমারের দল বিশ্বকাপ জিতলেই সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে। প্রশাসকদের একাংশ এটাও দাবি করছেন, গত বিশ্বকাপে জার্মানির কাছে ব্রাজিলের লজ্জাজনক হার দেশের সাধারণ মানুষকে বিমুখ করে তুলেছে। 

দেশের ফুটবল দলের উপর থেকে বিশ্বাস উঠে গেছে একটা বড় অংশের ফুটবল সমর্থকদের। রাশিয়া বিশ্বকাপে নেইমারদের প্রথম কাজ হবে সেই বিশ্বাস পুনরায় অর্জন করা। আর দেশের মানুষের মন ফিরে পেতে বিশ্বকাপ জয় ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। ব্রাজিলের ফুটবল মহল অন্তত সেটাই বলছে। সূত্র: জি নিউজ

বিডি প্রতিদিন/২৫ মে ২০১৮/আরাফাত

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow